অনলাইনে আয় করার নিশ্চিত উপায় 2019

আজকে আমরা কথা বলবো অনলাইন থেকে আয় করার নিশ্চিত কিছু উপায় নিয়ে যেগুলো 2019 সালে মানুষ প্রচুর পরিমাণে করছে এবং ইনকাম করে নিচ্ছে।

অনলাইন থেকে এখনো নিশ্চিত ভাবে ইনকাম করা যায় এবং সেটা খুব সহজেই করা যায় যদি আপনার নিজের মাঝে চেষ্টা এবং সততা থাকে তাহলে আপনি অনলাইন সেক্টর থেকে সফলতা অর্জন করতে পারবেন।
অনলাইনে আয় করার নিশ্চিত উপায় 2019

অনলাইন থেকে নিশ্চিত ভাবে উপার্জন করার জন্য আপনাকে অবশ্যই প্রফেশনাল মানের কিছু করতে হবে ছোটখাটো অ্যাপস এর মাঝে কাজ করে আপনি আপনার ক্যারিয়ার কখনো ধরতে পারবেন না।

এবং সেখান থেকে আপনি সারা জীবন ইনকাম করতে পারবেন না হয়তোবা কিছু একটা সময় পর্যন্ত ইনকাম করতে পারবেন সেটা আপনার পকেট খরচ চালিয়ে দিবে কিন্তু সারা জীবন একটি ক্যারিয়ার গড়ার জন্য ভালো পরিমাণে ইনকাম করার জন্য আপনাকে অবশ্যই একটু বেশি পরিমাণে পরিশ্রম করতে হবে আমি নিচে যে কাজগুলো দেখিয়ে দিয়েছি এই কাজগুলো যদি করতে পারেন তাহলে আপনি অনলাইন থেকে নিশ্চিত ভাবে ইনকাম করতে পারবেন।

ফ্রিল্যান্সিং করে আয়

ফ্রিল্যান্সিং করে আয়

ইন্টারনেট থেকে নিশ্চিত ভাবে ইনকাম করার জন্য ফ্রিল্যান্সিং হচ্ছে সবচেয়ে ভালো এবং নিশ্চিত একটি উপায় এই সেক্টরে কাজ করলে আপনি ইনকাম করতে পারবেন এবং খুব শীঘ্রই ইনকাম শুরু করতে পারবেন।

কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং করে ইনকাম করবেন এই নিয়ে একটি পোস্ট আছে এই পোস্টটি দেখতে পারেন

ফ্রিল্যান্সিং করে ইনকাম করা অনেকের পছন্দ নিয়ে একটি কাজ এই কাজটি করার জন্য আপনাকে অবশ্যই একটি স্কিল দক্ষ করে নিতে হবে আপনি যে কোন একটি বিষয়ে দক্ষতা অর্জন করে নিতে পারেন যেমন গ্রাফিক্স ডিজাইনের কাজ করতে পারেন আপনার যদি ক্রিয়েটিভ কিছু চিন্তাভাবনা মাথার মাঝে থাকে তাহলে আপনি গ্রাফিক্স ডিজাইন সেক্টরে চলে আসতে পারেন গ্রাফিক্স ডিজাইন করে কিভাবে ইনকাম করবেন এই নিয়ে একটি পোস্ট করা আছে চাইলে পোস্টটি দেখতে পারেন।

তাছাড়া ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য আরো অনেক সেক্টর আছে আপনি যে কোন একটি কাজ শিখে নিতে পারেন আপনি চাইলে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শিখতে পারেন প্রোগ্রামিং শিখতে পারেন অ্যাপস ডেভেলপমেন্ট শিখতে পারেন এই কাজগুলো শিখে আপনি ফ্রিল্যান্সিংয়ের নেমে পড়তে পারেন।

ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য সবচেয়ে জনপ্রিয় ওয়েবসাইট হচ্ছে upwork.com আপনি এই ওয়েবসাইটটি ভিজিট করলে বুঝতে পারবেন এখানে প্রতিদিন কত লক্ষ লক্ষ ডলারের লেনদেন হচ্ছে আপনি যদি একটি দক্ষতা অর্জন করে নিতে পারেন তাহলে আপনি এই ওয়েবসাইটগুলোতে কাজ করতে পারবেন এই ওয়েবসাইটটি ছাড়া আরো অনেক ওয়েবসাইট রয়েছে পুরো বিশ্বের মাঝে আপনি যে কোন একটি ওয়েবসাইটে কাজ করতে পারেন।

ব্লগিং করে অনলাইন থেকে আয়

ঘরে বসে অনলাইনে আয় করুন

পুরো বিশ্বের মাঝে ইন্টারনেট থেকে ইনকাম করার সবচেয়ে জনপ্রিয় উপায় হচ্ছে ওয়েবসাইট ইন্টারনেটজুড়ে আপনি যা দেখছেন সবকিছুই হচ্ছে ওয়েবসাইট আর এই ওয়েবসাইট দিয়ে ইনকাম করা যায় অনেক উপায় ওয়েবসাইট দিয়ে কি কি উপায়ে ইনকাম করা যায় তা নিয়ে একটি পোস্ট আছে আপনি পোস্টটি দেখে আসতে পারেন

আপনার যদি ভালো কোন বিষয় জানেন অথবা কোন একটি বিষয় মানুষকে শিখাতে পারবেন সেই বিষয়ে আপনি একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে ফেলতে পারেন এবং ওয়েব সাইটে প্রতিদিন বিভিন্ন ধরনের কনটেন্ট পাবলিশ করবেন এটা করে দেখবেন আপনার ওয়েবসাইটে একদিন রেংক হয়ে যাবে এবং ওয়েবসাইট থেকে প্রচুর টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

আপনি যদি ভালো একটি টপিক নিয়ে ব্লগিং করতে পারেন তাহলে ফ্রিল্যান্সিং করে একজন ফ্রিল্যান্সার এক বছরে যে টাকা ইনকাম করতে পারে আপনি চাইলে এক মাসেই সেই টাকা ইনকাম করতে পারেন তার জন্য অবশ্যই আপনার ওয়েবসাইটে কন্টেন্টগুলো ভালো মানুষ হতে হবে এবং মানুষের উপকারে আসে এমন কনটেন্ট পাবলিশ করতে হবে এবং আপনাকে এসইও জানতে হবে।

যদি ভালোভাবে কনটেন্ট পাবলিশ করতে পারেন এবং এসইও করতে পারেন তাহলে আপনার ওয়েবসাইটটি গুগলের প্রথম পেজে চলে আসবে এবং গুগলের প্রথম পেজে চলে আসলে কোন পরিশ্রম ছাড়াই আপনার ওয়েবসাইটে ভিজিটর চলে আসবে এবং গুগল থেকে ভিজিটর আসলে অবশ্যই আপনার ওয়েবসাইটে সে অনেক সময় ব্যয় করবে এবং ওয়েবসাইট থেকে আপনার ভালো পরিমাণে একটি ইনকাম হয়ে যাবে।

ওয়েবসাইট থেকে ইনকাম করার সবচেয়ে জনপ্রিয় মাধ্যম হচ্ছে এফিলিয়েট মার্কেটিং এফিলিয়েট মার্কেটিং করে ওয়েবসাইট থেকে আপনার প্রতি মাসে 1000 ডলারের বেশি ইনকাম করতে পারবেন যদি আপনি ভালো ভাবে প্রোডাক্ট গুলো সম্পর্কে লিখতে পারেন আপনি চাইলে যে কোন প্রোডাক্ট নিয়ে লেখালেখি করতে পারেন সবচেয়ে সহজ প্রোডাক্ট হচ্ছে মোবাইল ফোন এবং বিভিন্ন ধরনের  মোবাইল ফোন নিয়ে লিখতে পারে না এমন লোক খুব কম মোবাইল ফোন নিয়ে চাইলে সবাই লিখতে পারেন আপনি চাইলে মোবাইল ফোন নিয়ে একটি ব্লগ সাইট তৈরি করে ফেলতে পারেন এবং সেখানে বিভিন্ন ধরনের টিপস শেয়ার করেন দেখবেন গুগোল থেকে প্রচুর পরিমাণে ভিজিটর পাবেন।

ওয়েব সাইটে ইনকাম করার জন্য আরেকটি জনপ্রিয় উপায় হচ্ছে গুগল এডসেন্স ব্যবহার করে ইনকাম করা গুগল এডসেন্স এর এড কোড বসিয়ে ইনকাম করা অনেকটাই জনপ্রিয় অনেকে শুধুমাত্র গুগল এডসেন্স এর এড কোড বসিয়ে একটি ওয়েবসাইট থেকে 1000 ডলারের বেশি ইনকাম করে নিচ্ছে তাহলে আপনি কেন পারবেন না আপনি কাজ শুরু করুন দুই মাস কাজ করুন 6 মাস কাজ করুন দেখবেন আপনি একসময় প্রচুর টাকা ইনকাম করতে পারছেন।

একটি ওয়েবসাইট কখনোই একদিনে দুই দিনে গুগলের প্রথম পেজে চলে আসে না আপনাকে অবশ্যই পরিশ্রম করতে হবে এবং ধৈর্য ধরে কাজ করতে হবে আপনি এক বছর কাজ করুন দেখবেন আপনি গুগল এডসেন্স থেকে ইনকাম করতে পারছেন এবং অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে ইনকাম করতে পারছেন।

ইউটিউব থেকে অনলাইন আয়

সহজে অনলাইনে আয় করার উপায়

ওয়েবসাইট এর মত আরেকটি জনপ্রিয় উপায় হচ্ছে ইউটিউব ইউটিউব থেকে ইনকাম করা খবর সহজ যদি আপনি ভিডিও তৈরি করতে পারেন তাহলে
ইউটিউব থেকে কিভাবে ইনকাম করতে হয় এই নিয়ে একটি পোস্ট আছে আপনি চাইলে এই পোস্টটি দেখে আসতে পারেন

ফ্রিল্যান্সিং করে এবং ব্লগিং করে আপনি যে টাকা ইনকাম করতে পারবেন তার চেয়ে বেশি টাকা ইনকাম করতে পারবেন ইউটিউবে ভিডিও আপলোড দিয়ে ফ্রিল্যান্সিং করলে আপনি যতক্ষণ ফ্রিল্যান্সিং করবেন ততক্ষণ ইনকাম করতে পারবেন এবং যদি আপনি ব্লগিং করেন তাহলে আপনি এই ব্লগিং থেকে সারা জীবন ইনকাম করতে পারবেন তবে আপনাকে পরিশ্রম করতে হবে একটু বেশি আপনার ওয়েব সাইটের কনটেন্ট গুলো কে এস ইউ করতে হবে এবং ভালোভাবে অপটিমাস করতে হবে তাহলে আপনার সারা জীবন ইনকাম করতে পারবেন।

আর ইউটিউব থেকে সারা জীবন ইনকাম করার জন্য আপনাকে এত পরিশ্রম করতে হবে না ইউটিউবে শুধু আপনি ভিডিও দিবেন ভিডিও কোয়ালিটি যদি ভাল হয় তাহলে দেখবেন আপনার ভিডিওগুলো মানুষ খুঁজে খুঁজে দেখছে এবং দেখবেন এক সময় আপনার সাবস্ক্রাইবার অনেক হয়ে গেছে।

যখন আপনার অনেক সাবস্ক্রাইবার হয়ে যাবে তখন দেখবেন একটি ভিডিও আপলোড দেওয়ার সাথে সাথে হাজার হাজার মানুষ আপনার ভিডিওটি দেখছে এবং আপনার ভিডিও থেকে ইনকাম হচ্ছে যেটি আপনি ফ্রিল্যান্সিং করে কখনোই করতে পারবেন না অথবা ব্লগিং করে ও করতে পারবেন না youtube-এ এটি একটি চমৎকার সুবিধা যেখানে আপনার যদি 1 মিলিয়ন সাবস্ক্রাইবার থাকে তাহলে ইউটিউব থেকে ইনকাম করার জন্য আপনাকে আর কোন ধরনের চিন্তা করতে হবে না অটোমেটিক ইনকাম আসতেই থাকবে।

আর এই 1 মিলিয়ন সাবস্ক্রাইবার তৈরি করার জন্য অথবা 1 লক্ষ সাবস্ক্রাইবার তৈরি করার জন্য আপনাকে অবশ্যই এক বছর কিংবা দুই বছর পরিশ্রম করতে হবে কন্টিনিউ ভিডিও আপলোড করে যেতে হবে তাহলে দেখতে পারবেন একসময় আপনার ইউটিউব চ্যানেলটি পুরো বিশ্বের মানুষের কাছে পৌঁছে গেছে এবং ভিডিও আপলোড করার সাথে সাথে আপনার ভিডিওগুলো লক্ষ লক্ষ মানুষ দেখছে এবং আপনার ভিডিও থেকে ইনকাম হতেই থাকবে এটি একটি প্যাসিভ ইনকাম সোর্স।

ইউটিউব এর মাধ্যমে ইনকাম করার জন্য সবচেয়ে জনপ্রিয় উপায় হচ্ছে গুগল এডসেন্স গুগল এডসেন্স এর মাধ্যমে ইউটিউব থেকে প্রায় সবাই ইনকাম করে গুগল অ্যাডসেন্স পাওয়ার জন্য আপনার ইউটিউব চ্যানেলটি তে লাস্ট এক বছরে 1 হাজার সাবস্ক্রাইবার এবং 4000 ঘন্টা ওয়াচ টাইম হলে আপনি গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করতে পারবেন যদি আপনার ইউটিউব চ্যানেলের ভিডিও গুলো ভাল হয়ে থাকে তাহলে আপনার ইউটিউব চ্যানেলটি মনিটাইজেশন হয়ে যাবে এবং আপনার ইনকাম শুরু হয়ে যাবে।

ইউটিউব থেকে আরো অনেক উপায় ইনকাম করা যায় যেমন স্পন্সর ভিডিও পাবলিশ করে ইনকাম করতে পারবেন বিভিন্ন কোম্পানি আপনাকে স্পন্সর করবে যখন আপনার ইউটিউব চ্যানেলটি অনেক বড় হয়ে যাবে তখন অনেক কোম্পানি আপনাকে তাদের প্রোডাক্ট প্রচার করার জন্য আপনাকে স্পন্সর করবে এবং পেমেন্ট করবে।

তাছাড়া আপনি ইউটিউবে এফিলিয়েট মার্কেটিং করতে পারবেন বিভিন্ন ধরনের প্রোডাক্টের রিভিউ দিয়ে সে প্রোডাক্টগুলোর আপনার ইউটিউব এর ভিডিও ডেসক্রিপশন প্রোডাক্ট গুলোর লিংক এবং সেখান থেকে প্রচুর মানুষ প্রোডাক্ট গুলো কিনে নিবে বর্তমানে প্রায় সবাই কোন একটি জিনিস কেনার আগে ইউটিউবে সার্চ করে দেখে নেয় এই প্রোডাক্টটি কেমন এবং এর প্রোডাক্ট গুলো কি রিভিউর মানুষ দিয়েছে এই বিষয়গুলো আগে সবাই দেখে নেয় তাই আপনি চাইলে প্রোডাক্টের রিভিউ করে প্রোডাক্ট বিক্রি করতে পারেন ইউটিউব এর মাধ্যমে ইনকাম করার জন্য ইউটিউব সবচেয়ে বেস্ট উপায়।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে অনলাইন থেকে আয়

অনলাইনে আয় করার সহজ উপায়

ইন্টারনেট থেকে ইনকাম করার জন্য এফিলিয়েট মার্কেটিং অনেক জনপ্রিয় উপায় এই উপায়ে আপনি চাইলে প্রতি মাসে 5000 ডলার পর্যন্ত ইনকাম করতে পারবেন কিভাবে এফিলিয়েট মার্কেটিং করবেন এই নিয়ে একটি পোস্ট আছে আপনি চাইলে এই পোস্টটি দেখে আসতে পারেন

এফিলিয়েট মার্কেটিং করে অনেকেই মাসে 1000 ডলার 2000 টাকা পর্যন্ত ইনকাম করছেন এফিলিয়েট মার্কেটিং করার জন্য আপনাকে অবশ্যই একটি ট্রাফিক সোর্স থাকতে হবে যদি আপনার একটি ট্রাফিক সোর্স থাকে তাহলে আপনি এফিলিয়েট মার্কেটিং করে খুব দ্রুত সফলতা অর্জন করতে পারবেন।

আর যদি আপনার কোন ট্রাফিক সোর্স না থাকে তাহলে এফিলিয়েট মার্কেটিং করে ইনকাম করা আপনার জন্য কষ্ট হয়ে যাবে তার পরেও আপনি চাইলে এফিলিয়েট মার্কেটিং করতে পারেন আপনার যদি মোটামুটি মার্কেটিং করার দক্ষতা থাকে তাহলে আপনি এফিলিয়েট মার্কেটিং করতে পারেন এফিলিয়েট মার্কেটিং করতে গেলে কিছু পরিমাণে ইনভেস্ট করতে হয়।

যেমন এফিলিয়েট মার্কেটিং করার জন্য অবশ্যই একটি ওয়েবসাইটের প্রয়োজন হয় ওয়েবসাইটটি করার জন্য আপনার ডোমেইন হোস্টিং কিনতে হয় তার জন্য কিছু টাকা প্রয়োজন হয় এবং এফিলিয়েট মার্কেটিং করে ইনকাম করার জন্য আপনাকে কিছু মার্কেটিং ও জানতে হবে যেহেতু এটি একটি মার্কেটিং এর সেক্টর আপনাকে অবশ্যই ভালভাবে মার্কেটিং করতে হবে এবং মার্কেটিং এর টিপস গুলো জানতে হবে তাহলে আপনি এফিলিয়েট মার্কেটিং করে সফল হতে পারবেন।

এফিলিয়েট মার্কেটিং এ কাজ পেতে কোন ধরনের ঝামেলা নেই আপনি শুধু প্রোডাক্ট গুলোর রিভিউ লিখবেন এবং প্রোডাক্ট এর নিচে প্রোডাক্টগুলো কিনার জন্য যে এফিলিয়েট লিংক গুলো থাকে সেগুলো সেখান দিয়ে দিবেন মানুষ এখান থেকে প্রোডাক্ট কিনে নিলে আপনার কমিশন আপনি আপনার অ্যাকাউন্টে পেয়ে যাবেন এফিলিয়েট মার্কেটিং করার জন্য সবচেয়ে জনপ্রিয় ওয়েবসাইট হচ্ছে amazon.com আপনি চাইলে এমাজন ডট কম একটি অ্যাফিলিয়েট একাউন্ট তৈরি করে এফিলিয়েট মার্কেটিং শুরু করতে পারেন।

আমাদের একটি ইউটিউব চ্যানেল রয়েছে এখানে ফ্রিল্যান্সিং বিষয়ক বিভিন্ন ধরনের ভিডিও পাবলিশ করা হয় এবং অনলাইন থেকে আয় করার বিভিন্ন ধরনের টিপস শেয়ার করা হয় আপনি চাইলে আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করে রাখতে পারেন

Post a Comment

0 Comments