বর্তমান কম্পিউটার ও মোবাইল ফোনের মধ্যে পার্থক্য জেনে রাখা দরকার

কম্পিউটার ও মোবাইল ফোন এর মধ্যকার পার্থক্য ক্রমান্বয়ে কমে আসতেছে
মোবাইল ফোন শুরুতে তারবিহীন টেলিফোন হিসেবে গুরুত্ব লাভ করে আকারে ছোট হওয়ায় পকেট এ বা হাতে নিয়ে চলাফেরা করা যায় ।
কম্পিউটার ও মোবাইল ফোনের মধ্যে পার্থক্য

সহজে বহনযোগ্য হওয়ায় এবং নব্বইয়ের দশকের মাঝামাঝি সময়ের পরে এর দাম কমে আসায় মোবাইল ফোন আমাদের দেশে মধ্যবিত্ত মানুষের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে চলে আসে ।
এবং এখন সকল শ্রেণীর মানুষের হাতে মোবাইল ফোন দেখা যায়

শুরুতে তারবিহীন টেলিফোন হিসেবে গুরুতর লাভ করলেও ক্রমান্বয়ে মোবাইল ফোনের সঙ্গে একটি একটি করে শুধু বাড়ানো হচ্ছে ।
এখন মোবাইল ফোন দেশে বিদেশে কথা বলা ছাড়াও খবর দেখা ও শোনা যায় বার্তা আদান প্রদান করা যায় ও চলমান ছবি তোলা যায় ভিডিও করা যায় এবং দেখাও যায় গান রেকর্ড করা যায় এবং শোনা যায় গেম খেলা যায় ছোটখাটো হিসাব-নিকাশের কাজ এখন মোবাইল দিয়ে করা যায় ।
কোন কোন মোবাইল সম্পুর্ণ কম্পিউটারের কাজ করতে পারে।

মোবাইল দিয়ে কিছু কিছু কাজ আছে যেগুলো কম্পিউটারে কাজ সেগুলো মোবাইল দিয়ে করে ফেলা যায় এমন অনেক কাজ আছে যা মোবাইল ফোনের মাধ্যমে সমাধান করা যায়।

মোবাইল ফোনের সঙ্গে নতুন নতুন সুযোগ যুক্ত করার প্রক্রিয়া অব্যাহত রয়েছে ।
নব্বইয়ের দশকের শুরুতে পামটপ কম্পিউটার তৈরির উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল ইংরেজি plam শব্দের অর্থ হচ্ছে হাতের তালু কম্পিউটার হচ্ছে হাতের তালুতে রেখে ব্যবহারযোগ্য কম্পিউটার।

কিন্তু পামটপ কম্পিউটার বিদ্যমান কম্পিউটারের বিকল্প হিসেবে গুরুত্ব লাভ করতে পারেনি ।
ফলে কম্পিউটার তৈরি ও বাজারজাত করার উদ্যোগ তেমন সফল হয়নি মোবাইল ফোন হয়তো একসময় পামটপ কম্পিউটার এর মত একটি অবস্থানে পৌঁছে যেতে পারে অনেকে এসব পিডিএ ফোন স্মার্টফোন বলেন।

মোবাইল ফোনের চাহিদা যেমন বাড়ছে এর ভিতরে প্রযুক্তির তেমনটাই বাড়ছে ।
এবং মোবাইল ফোন দিয়ে একসময় কম্পিউটার এর সমস্ত কাজ করা যাবে যা আগে করা যেত না ।

মোবাইল ফোনের মাধ্যমে এখন ইন্টারনেট ব্যবহার করে একটি কম্পিউটার এর সমস্ত কাজ মোবাইল ফোন দিয়ে করা যায় ।
এবং স্মার্টফোনগুলোতে বিভিন্ন ধরনের ব্রাউজার রয়েছে যেগুলো দ্বারা একটি কম্পিউটারের কাজ মোবাইল ফোন দিয়ে করা যায় তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে আমাদেরকে কম্পিউটার ব্যবহার করতে হয়।

Post a Comment

0 Comments