স্বাধীন কার্ড এর নতুন আপডেট

আমরা অনলাইনে যারা কাজ করি এবং অনলাইনে যারা কাজ করতে চাই তাদের একটি মাস্টার কার্ড অত্যন্ত প্রয়োজন হয়ে থাকে।


আর একটি মাস্টার কার্ড দিয়ে আমরা অনলাইনে সব ধরনের ট্রানজেকশন করতে পারি যদি সেটি ডুয়েল কারেন্সি মাস্টারকার্ড হয়ে থাকে তাহলে।

ব্যাংক এশিয়া দিচ্ছে আমাদেরকে একটি স্বাধীন মাস্টারকার্ড অথবা ফ্রিল্যান্সার কার্ড সেই কার্ডে  আমরা খুব সহজেই পুরো বিশ্বের মাঝে ট্রানজেকশন করতে পারব খুব সহজভাবে।
এই স্বাধীন মাস্টারকার্ড এর কিছুটা আপডেট বর্তমান সময় চলে এসেছে যে আপডেট গুলো আমাদের জেনে রাখা অনেকটা জরুরী।

স্বাধীন মাস্টারকার্ড হচ্ছে ব্যাংক এশিয়ার একটি প্রিপেইড মাস্টারকার্ড যে কার্ড ব্যবহার করে আমরা পুরো ওয়াল্ডে ট্রানজেকশন করতে পারব ফেসবুক বুস্ট করতে পারব ইউটিউব বুস্ট করতে পারব বিভিন্ন অ্যাড ক্যাম্পেইন চালাতে পারব গুগোল এ পেমেন্ট দিতে পারব এবং কি ই-কমার্স সাইট গুলো আছে সেগুলো থেকেও আমরা যে কোন ধরনের প্রোডাক্ট কিনতে পারবো এ মাস্টার কার্ড এর মাধ্যমে।

এই কার্ডের একটি সুবিধা হচ্ছে এই কার্ডটি ব্যবহার করার জন্য আপনাকে পাসপোর্ট এন্ডোর্সমেন্ট করতে হচ্ছে না।

 বাংলাদেশে আরো অনেক মাস্টার কার্ড আছে অনেক ব্যাংক দিয়ে থাকে যেগুলো ব্যবহার করার জন্য আপনার একটি পাসপোর্ট প্রয়োজন হয় সে পাসপোর্ট এর মাধ্যমে ডলার এন্ডোর্সমেন্ট করার মাধ্যমে আপনি সেই ডলার টি বিদেশে খরচ করতে পারেন কিন্তু স্বাধীন মাস্টারকার্ড এটি একদমই আলাদা আপনি এই স্বাধীন মাস্টার কার্ডের ডলারগুলো পাসপোর্ট ছাড়াই পুরো বিশ্বে ব্যবহার করতে পারবেন।

এবং আরো একটি সুবিধা সেটি হচ্ছে বাংলাদেশে এই সর্ব প্রথম বাহিরের দেশ থেকে কার্ডের মাধ্যমে পেমেন্ট নেওয়া যায় সেটি হচ্ছে স্বাধীন মাস্টার কার্ড তবে এক্ষেত্রে যে কোন অনলাইন মার্কেটপ্লেস থেকেই পেমেন্ট নিতে পারবেন এই কার্ডের মাধ্যমে যেটি অন্য কোন ব্যাংক বর্তমান সময় দিচ্ছে না এই সার্ভিসটি।

এই কার্ডের আরেকটি সুবিধা সেটি হচ্ছে পেওনিয়ার একাউন্ট থেকে আপনার সরাসরি এই কার্ডে ট্রানজেকশন করতে পারবেন এবং খুব সহজেই পেওনার এর টাকাটা আপনি স্বাধীন মাস্টারকার্ড দিয়ে যে কোন এটিএম থেকে তুলে নিতে পারবেন খুব সহজভাবে।

এই কার্ড নেওয়ার জন্য আপনাকে অবশ্যই ফ্রিল্যান্সার হতে হবে আপনি যে একজন ফ্রিল্যান্সার তার প্রমান তাদেরকে দিতে হবে।
আপনি যে ফ্রিল্যান্সার তাদেরকে প্রমান বা স্টেটমেন্ট  দিতে পারেন তাহলে আপনি এই কার্ডটি ব্যবহার করতে পারবেন অন্যথায় আপনি এই নিতে পারবেন না।

এই কার্ডটি নেওয়ার জন্য ব্যাংক এশিয়ার যেকোনো একটি শাখায় যেতে হবে।
এবং তাদের সাথে কথা বলে আপনাকে এই কার্ড নিয়ে আসতে হবে কার্ড নেওয়ার জন্য আপনাকে একটি ফরম ফিলাপ করতে হবে এবং টিন সার্টিফিকেট দিতে হবে এবং আপনি একজন ফ্রিল্যান্সার তার একটি প্রমাণ দিতে হবে এবং আপনার নেশনাল আইডি কার্ড দিতে হবে তাহলে আপনি এই কার্ডটি আনতে পারবেন ব্যাংক এশিয়ার যেকোনো শাখা থেকে।

আপনি যদি একজন ফ্রিল্যান্সার হয়ে থাকে তাহলে আপনার এই কার্ডটি ব্যবহার করা খুবই ইজি হয়ে যাবে কারন এটার ট্রানজেকশন এর লিমিট টা অনেকটাই বেশি।
অন্য সব কার্ডে সাধারণত খুব অল্প পরিমাণ লিমিট থাকে এক্ষেত্রে আপনি এই কার্ডে প্রচুর পরিমাণে ট্রানজেকশন করতে পারবেন যে কোন রাষ্ট্রে এবং যে কোন ওয়েব সাইটে।

এই কার্ডের মাধ্যমে আপনি ই-কমার্স বিজনেস করতে পারেন যেহেতু এই কার্ডে টাকা ইন হচ্ছে এবং আউট হচ্ছে সে ক্ষেত্রে আপনি আপনার ওয়েব সাইট থেকে এই কার্ডে পেমেন্ট নিতে পারবেন।

এই কার্ডে আপনার যখন টাকা আসবে কোন অনলাইন ব্যাংক থেকে অথবা কোন ওয়েবসাইট থেকে  এই টাকা টা 70% পার্সেন্ট টাকা ডলার থাকবে এবং 30% টাকা অটোমেটিকলি বিডিটি টাকায় কনভার্ট হয়ে যাবে এটিও আরেকটি সুবিধা আপনি চাইলে একসাথে বিডিটি খরচ করতে পারেন এবং ইউএসডি খরচ করতে পারেন।

ফ্রিল্যান্সারদের জন্য এই কার্ডটি অনেক বড় একটি সুবিধা এনে দিয়েছে ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য সাধারণত বাংলাদেশ অন্যান্য দেশের যে সার্ভিস গুলো আছে সেই সার্ভিসগুলো বাংলাদেশের দেওয়া হয় না সে ক্ষেত্রে বাংলাদেশের ফ্রিল্যান্সার গুলো পেমেন্ট নিয়ে একটু সমস্যায় থাকে সে ক্ষেত্রে এই কার্ডটি বাংলাদেশের ফ্রিল্যান্সারদেরকে অনেকটাই সহজ করে দেবে পুরো ওয়াল্ডে বিজনেস করার জন্য।

Post a Comment

0 Comments