গুগল এডসেন্স কি? এবং কিভাবে কাজ করে


গুগল এডসেন্স


বর্তমান সময়ে গুগল এডসেন্স থেকে ইনকাম করা একটি জনপ্রিয় মাধ্যম।
চাইলে আপনিও ইনকাম করতে পারেন এই গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে।
গুগল অ্যাডসেন্স এর মাধ্যমে ইনকাম করার অনেকগুলো উপায় রয়েছে।
আমি আজকে তার মধ্যে কয়েকটি বিষয় নিয়ে আলোচনা করব।
গুগল অ্যাডসেন্স এর মাধ্যমে যে বিষয়গুলো দিয়ে আপনি ইনকাম করতে পারবেন।
আপনার যদি একটি ব্লগ বা একটি ওয়েবসাইট থেকে থাকে তাহলে আপনি গুগোল এডসেন্স এর মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন।
অথবা আপনার যদি কোন ইউটিউব চ্যানেল থেকে থাকে এবং আপনি যদি অ্যাপস ডেভলপ করতে পারেন সফটওয়্যার তৈরি করতে পারেন অথবা গেমস তৈরি করতে পারেন তাহলেও আপনি গুগল অ্যাডসেন্স এর মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন।

গুগল এডসেন্স কিভাবে কাজ করে।


গুগল এডসেন্স হচ্ছে গুগলের একটি এডভেটাইজ আর পাবলিশার প্রোগ্রাম।
যার মাধ্যমে গুগোল বিভিন্ন কোম্পানির এডভেটাইজ পাবলিশ করে থাকে।
আর এই এডভেটাইজ গুলো দিয়ে থাকে বিভিন্ন ধরনের কোম্পানির বিভিন্ন ধরনের প্রতিষ্ঠান তাদের অফার গুলো প্রমোট করতে থাকে সেই অফার গুলো গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে বিভিন্ন ওয়েব সাইটের পাবলিশার এবং অ্যাপস এবং ইউটিউব চ্যানেলের মাধ্যমে সেগুলো পাবলিশ করে থাকে গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে।
আর এই এডভেটাইজ গুলো বিভিন্ন ধরনের কম্পানি দিয়ে থাকে এডওয়ার্ড এর মাধ্যমে।
আর এই এডওয়ার্ড হচ্ছে গুগলের আরেকটি প্রোগ্রাম যার মাধ্যমে বিভিন্ন কোম্পানি প্রতিষ্ঠান গুগলের কাছে তাদের প্রোডাক্ট অথবা সার্ভিসের প্রমোশন করে।
এবং সেই সার্ভিসগুলো গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে পাবলিশ করে।
এক কথায় এডওয়ার্ড এর মাধ্যমে গুগল কারো এডভারটাইস নিয়ে নেয় এবং এডসেন্সের মাধ্যমে সেটি পাবলিশ করে দেয়।
অ্যাডভারটাইজার কোম্পানিরা প্রমোশন করার সময় যেই টাকা গুগোল কে পে করে তার কাছ থেকে 30 শতাংশ টাকা গুগোল কেটে নিয়ে বাকি টাকা পাবলিশার কে দিয়ে দেয় পাবলিশার হচ্ছে ওয়েবসাইটের মালিক অথবা ইউটিউব চ্যানেলের মালিক।

গুগোল অ্যাডসেন্সে একাউন্ট কয় ধরনের হয়ে থাকে।

গুগল এডসেন্স এর একাউন্ট দুই ধরনের হয়ে থাকে
হোস্টেড এডসেন্স একাউন্ট।
নন হোস্টেড এডসেন্স একাউন্ট।

হোস্টেড এডসেন্স একাউন্ট।

হোস্টের অ্যাকাউন্ট হচ্ছে গুগলের হোস্টিং ব্যবহার করে যে সমস্ত অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট গুলো তৈরি করা হয় সেগুলোকে হোস্টেড এডসেন্স একাউন্ট বলা হয়।
যেমন ইউটিউব এর জন্য এডসেন্স একাউন্টগুলো তৈরি করা হয় সেগুলো হচ্ছে হোস্টেড অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট।
ইউটিউব এর সমস্ত ভিডিও গুলো গুগলের হোস্টে থাকে তাই এই একাউন্ট কে হোস্টেড এডসেন্স একাউন্ট বলে।
অথবা ব্লগার এর মধ্যমে যে ওয়েবসাইট গুলো তৈরি করা হয় সেগুলো। ওয়েবসাইটের কনটেন্ট গুলো গুগলের হোস্টিং এ থাকে সে ক্ষেত্রে ব্লগারের অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্টটি হোস্টেড এডসেন্স একাউন্ট হয়ে থাকে।

নন হোস্টেড এডসেন্স।

নন হোস্টেড এডসেন্স একাউন্ট হচ্ছে আপনার নিজের হোস্টিং এ রেখে যে সমস্ত ওয়েবসাইট গুলো তৈরি করবেন সেগুলো হচ্ছে নন হোস্টেড এডসেন্স।আপনার নিজের হোস্টিং এর সাইট গুলো দিয়ে যদি আপনি গুগল এডসেন্সে এপ্লাই করেন যদি এ্যাপ্রোভ পেয়ে যান তাহলে সেই অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্টটি হবেন নন হোস্টেড এডসেন্স একাউন্ট।
যেমন ওয়ার্ডপ্রেসে ওয়েবসাইট তৈরি করা।এবং জুমলার ড্রুবল আরো অনেক মাধ্যম আছে যে মাধ্যমে ওয়েবসাইটগুলোর তৈরি করতে হলে নিজেকে একটি হোস্টিং কিনে নিতে হয় সেই সমস্ত ওয়েবসাইট গুলি দিয়া যদি আপনি গুগল এডসেন্সে এপ্লাই করেন তো সে ক্ষেত্রে সেই অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্টটি হবে নন হোস্টেড এডসেন্স একাউন্ট।
এবং আপনি হোস্টেড এডসেন্স একাউন্ট কে পরবর্তীতে নন হোস্টেড অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্টে কনভার্ট করে নিতে পারবেন কোন একটি হোস্টিং সাইট দিয়ে।
আপনি চাইলে আপনার একটি ব্লগ অথবা ওয়েবসাইট দিয়ে আপনি গুগলের এ্যড প্রদর্শনের মাধ্যমে ইনকাম করতে পারেন আপনার নিজের একটি সাইট দিয়ে।গুগল এডসেন্স থেকে ইনকাম করা আরো অনেকগুলো সেক্টর রয়েছে সে সেক্টর গুলো দিয়েও আপনি ইনকাম করতে পারেন।

গুগল এডসেন্স ফর গেমস।

আপনি যদি অনলাইন বেজ কোন গেমস তৈরি করতে পারেন তাহলে সেই গেমস এর মধ্যমে আপনি গুগল এডসেন্স এর এড প্রদর্শন করে ইনকাম করতে পারেন সেক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই html5 জানতে হবে এবং জাভাস্ক্রিপ্ট জানতে হবে তাহলে আপনি এরকম অনলাইন বেজ একটি গেমস তৈরি করতে পারবেন এবং এডসেন্স এর মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন।

গুগল এডসেন্স ফর ভিডিও।

এই সার্ভিসটি ব্যবহার করে আপনি আপনার নিজের ভিডিও উপর গুগল এডসেন্স এর এড বসিয়ে ইনকাম করতে পারেন তার জন্য আপনাকে প্রয়োজন হবে একটি ভিডিও সাইট।
আপনার যদি নিজস্ব কোন ভিডিও ওয়েবসাইট থেকে থাকে তাহলে আপনি সেই সাইটের ভিডিওর উপরে গুগল এডসেন্স এর এড বসিয়ে ইনকাম করতে পারেন।
ব্লক সাইট
আপনার যদি ব্লগারের মাধ্যমে কোন সাইট তৈরি করা থাকে তাহলে আপনি সেই ব্লগারটি গুগল এডসেন্স এর সাথে এড করে নিয়ে এড প্রদর্শনীর মাধ্যমে ইনকাম করতে পারেন।
ব্লক হচ্ছে গুগলের একটি সার্ভিস যেটা ব্লগার নামে পরিচিত অথবা blogspot.com।এখান থেকে আপনি একটি ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি করে নিতে পারবেন একটি ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি করে নিয়ে আপনে চাইলে এডসেন্স এর মাধ্যমে ইনকাম করতে পারেন।

ইউটিউব দিয়ে এডসেন্স থেকে আয়।

আপনার যদি একটি ইউটিউব চ্যানেল থেকে থাকে তাহলে আপনি গুগল অ্যাডসেন্স এর মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন ইউটিউব হচ্ছে গুগলের একটি ভিডিও শেয়ারিং সাইট এখানে আপনি আপনার নিজের ভিডিও শেয়ার করে এই ভিডিও মাধ্যমে এক প্রদর্শন করে আর্নিং করতে পারেন।
ইউটিউব এর রুলস অনুযায়ী বর্তমান সময়ে এক বছরের মধ্যে 1 হাজার সাবস্ক্রাইবার এবং 4000 মিনিট ওয়াচ টাইম থাকলে আপনি গুগোল অ্যাডসেন্সে আবেদন করতে পারবেন।
আবেদন করার পর আপনার ইউটিউব চ্যানেলটি গুগোল রিভিউতে রাখবে এবং রিভিউ করে যদি মনে করে আপনার চ্যানেলটি অ্যাডসেন্স পাওয়ার যোগ্য তাহলে তারা আপনাকে এডসেন্স দিয়ে দিবে এবং আপনি ইন্সট্যান্টলি ইনকাম করতে পারবেন।
আর ইউটিউব দিয়ে এডসেন্স আবেদন করলে এই অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্টটি হবে হোস্টেড এডসেন্স একাউন্ট।

এডমোব এর মাধ্যমে গুগল এডসেন্স থেকে আয়।

অ্যাড মুভ কে ব্যবহার করে আপনি গুগোল এডসেন্স থেকে প্রচুর পরিমাণে টাকা আর্ন করতে পারেন।
তার জন্য আপনাকে জানতে হবে অ্যাপস তৈরি করা যদি আপনি অ্যাপস তৈরি করতে পারেন তাহলে আপনি এড মুভ থেকে এড ইউনিট ক্রিয়েট করে আপনি আপনার অ্যাপস এর মাধ্যমে গুগলের এড প্রদর্শন করে আপনি আর্নিং করতে পারেন।
এডমোব হচ্ছে গুগলের একটা সার্ভিস যেখান থেকে আপনি এডসেন্সের মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন এপস ডেভলপমেন্ট করে।
এই কাজগুলো করার মাধ্যমে আপনি গুগল এডসেন্স থেকে প্রচুর পরিমাণে টাকা আর্ন করে নিতে পারেন।
আপনি এই যে কোন একটি কাজ শিখে নিয়ে আপনার গুগল এডসেন্স এর মাধ্যমে আর্নিং করতে পারেন।
গুগল এডসেন্স কে অনেকে আবার সোনার হরিণ ও বলে থাকেন কারণ গুগল এডসেন্স একাউন্ট যদি আপনি করতে পারেন।

আপনি ভালো ভাবে গুগোল এর সাথে কাজ করতে পারেন আপনি এই গুগল এডসেন্স থেকে প্রচুর পরিমাণের টাকা উপার্জন করতে পারবেন।
বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় এডভার্টাইজিং প্রোগ্রাম হচ্ছে গুগল এডসেন্স গুগল অ্যাডসেন্স পাবলিশার কে প্রচুর পরিমাণে টাকা দিয়ে থাকে তাই এই গুগল এর এডসেন্স প্রচুর জনপ্রিয় একটি মাধ্যম টাকা উপার্জন করার জন্য।

এবং এই গুগল এডসেন্স থেকে টাকা উপার্জনের অনেকগুলো মাধ্যম রয়েছে আপনি যে কোন একটি মাধ্যম বেছে নিতে পারেন আপনার কাজের জন্য।
গুগল অ্যাডসেন্স পাওয়ার জন্য আপনাকে খুব সৎ ভাবে কাজ করতে হবে আপনি যদি কোনো ইলিগাল প্রসেস এই কাজগুলো করতে চান যেমন ব্লগিং ইউটিউবে অথবা এপস ডেভলপমেন্ট যেটাই করেন না কেন।
আপনাকে সৎ ভাবে করতে হবে তাহলে আপনার গুগল এডসেন্স পাবেন এবং গুগল এডসেন্স ঠিক টিকিয়ে রাখতে পারবেন।
অনেকেই গুগল এডসেন্স একাউন্ট পান কিন্তু শেষ পর্যন্ত এই গুগল অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট টিকিয়ে রাখতে পারেন না।
কারণ তারা বেশি ইনকামের আশায় অনেকে ইলিগাল কাজ করে থাকেন যেমন নিজের এডে নিজে ক্লিক করে থাকেন এবং অন্য কোন একজনের কম্পিউটার অথবা মোবাইল দিয়ে নিজের ওয়েব সাইটে ভিজিট করে এ্যডে ক্লিক  আরো অনেক কিছু করে থাকেন যার ফলে নিজের এডসেন্স একাউন্টি সাসপেন্ডেড হয়ে যায়।
এই বিষয়ে অবশ্যই সতর্ক থাকতে হবে যদি আপনার একটি অ্যাক্সেস একাউন্ট থেকেও থাকে তাহলে আপনি এই কাজগুলো কখনোই করতে যাবেন না।
আর একজন ব্যক্তির কখনো দুইটা এডসেন্স একাউন্ট এলাও না আপনার যদি পূর্বে কোন একটি এডসেন্স একাউন্ট থেকে থাকে তাহলে আপনি যে কোন একটি সার্ভিস ওই একাউন্টে এড করে নিবেন নতুন করে অ্যাকাউন্ট তৈরি করার কোনো প্রয়োজন নেই।
কোন ভুল হলে ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন,পোষ্টটি ভালো লাগলে শেয়ার করে দিবেন।
এবং কিছু বলার থাকলে কমেন্ট করতে পারেন ধন্যবাদ....

Post a Comment

0 Comments