যারা স্বধীন মাস্টারকার্ড নিতে চান তারা এই তথ্যগুলা জেনে রাখুন


স্বাধীন মাস্টারকার্ড, ফ্রিলেন্স্যারদের জন্য দিচ্ছে ব্যংক  এশিয়া স্বাধীন মাস্টারকার্ড বা ফ্রিলেন্স্যার কার্ড।
এই কার্ডটি হল ডুয়েল কারেন্সি কার্ড বাংলাদেশি টাকা এবং USD এক সাথে ব্যবহার করতে পারবেন।
অনলাইনের সমস্ত কাজ করতে পারবেন ফেসবুক বুস্ট, ডোমেইন হোস্টিং কিনা, ওয়েব সাইটে এড, ইকমার্স যে কোন সাইট থেকে কিনাকাটা করতে পারবেন।
এই কার্ড শুধু ফ্রিলেন্স্যাররাই নিতে পারবেন যারা ফ্রিলেনসিং করছেন তরাই এই কার্ডটি পাবেন। এই কার্ডটি আনতে আপনাকে কোন মার্কেট থেকে টাকা পেয়েছেন তার একটা প্রুফ দিতে হবে।
তাই যারা কাজ করেন নাই বা যারা ফ্রিলেন্স্যার না তারা এই কার্ডটি নিতে পারবেন না।

কার্ড আনতে যা যা  লাগবে
১ আপনাকে বাংলাদেশের নাগরিক হতে হবে
২ আপনে যে একজন ফ্রিলেন্স্যার তার প্রমান দিতে হবে, এবং আগের কোন একটা পেমেন্ট পাওয়ার স্টেডমেন্ট দিতে হবে।
৩ টিন সার্টিফিকেট দিতে হবে
৪ ১৮ বছর বয়স হতে হবে

এই সব ইনফরমেশন দিয়ে আপনি ব্যংক এশায়ার যে কোন শাখা থেকে এই কার্ডটি আনতে পারবেন
এই কার্ডের সুবিধা
এই কার্ডটি একটি ডুয়েল কারেন্সি কার্ড
এই কার্ডটিতে আপনে টাকা রিসিব এবং সেন্ট দুটুই করতে পারবেন।
এক কার্ড থেকে অন্য কার্ডে টাকা ট্রান্সফার করতে পারবেন।
ইকমার্স বিজনেস করতে পারবেন


তবে এই কার্ডে বাংলাদেশের কোন ব্যংক থেকে টাকা বা ডলার লোড দিতে পারবেন না।
কার্ডে টাকা আসার সাথে সাথে ৪০% টাকা বাংলাদেশি টাকা হয়ে যাবে আর ৬০% ডলারে থাকবে।
এই স্বাধীন কার্ডটি যারা অনলাইনে কাজ করছেন তাদের জন্য ভাল একটা সার্ভিস দিচ্ছে এই কার্ড।
আর যারা নতুন এখনো কোন সাইট থেকে টাকা পাননি তাদের এই কার্ডটি কোন কাজে আসবেনা কারন আপনি এটাতে বাংলাদেশর কোন ব্যংক থেকে লেড করতে পারবেন না।

আপনি নতুন হয়ে থাকলে ইস্টার্ন ব্যংক এর কার্ড নিতে পারেন বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন
আপনি যদি অনলাইনে খরচ করতে চান তবে স্বধীন কার্ডটি হবে আপনার জন্য অনেক ভাল হবে।

এই কার্ডটি বর্তমানে বাংলাদেশের ফ্রিল্যান্সারদের জন্য অনেকটাই উপকারী বলা যায় কারণ এই কার্ডটি দিয়া আমরা পেমেন্ট আনতে পারি এবং এই কার্ড দিয়ে আমরা কোন একটি জায়গায় পেমেন্ট দিতে পারি।

এবং এই কার্ডের দিয়ে যেকোনো অ্যাকাউন্ট মার্কেটপ্লেস থেকে আমরা পেমেন্ট করতে পারি এমন কার্ড বাংলাদেশ বর্তমান সময়ে এই প্রথম একটি লঞ্চ হয়েছে।
তাই আমরা এই কার্ডটি ব্যবহার করে প্রচুর পরিমাণে বেনিফিটেড হতে পারব এবং জাদের কার্ড নিয়ে সমস্যা হচ্ছিল অনলাইনে কাজ করার জন্য।

বাংলাদেশের বিভিন্ন ব্যাংকে বিভিন্ন ধরনের কাজ রয়েছে যেগুলো ব্যবহার করার জন্য পাসপোর্ট এন্ডোর্সমেন্ট করতে হয় আমরা একটি পাসপোর্ট এন্ডোর্সমেন্ট ছাড়াই ব্যবহার করতে পারছি।
এই কার্ডটি আমাদের মত ফ্রিল্যান্সারদের জন্য অনেকটাই উপকারী

Post a Comment

1 Comments