যারা ইস্টার্ন ব্যাংক এর মাস্টারকার্ড নিতে চাচ্ছেন তাদের জন্য কিছু কথা


বাংলাদেশে ইস্টার্ন ব্যাংক ৩ টি ডুয়েল কারেন্সি কার্ড দিচ্ছে ১ একুয়া মাস্টারকার্ড ২ লাইফ স্টাইল ভাসা কার্ড ৩ নবইয়ার মাস্টারকার্ড। এই তিনটি কার্ড আপনি সারা বিশ্বে ব্যবহার করতে পারবেন। ফেসবুক বুস্ট ইউটিউব ভিডিও বুস্ট ডোমেইন হোস্টিং সব কিছু কিনতে পারবেন ই কমার্স সাইট থেকে যে কোন কিছু কিনতে পারবেন।

এখন আসি এই কার্ড গুলি কিভাবে পাবেন।
কার্ড নেওয়ার জন্য আপনাকে ইবিএল ব্যাংক এর যে কোন একটি শাখায় যেতে হবে
প্রথমে একটি ফ্রম পুরন করতে হবে।
বাংলাদেশের নাগরিক হতে হবে।
১৮ বছর বয়স হতে হবে ।

কার্ডে USD ব্যবহার করার জন্য সাথে করে পাসপোর্ট নিয়ে যেত হবে।
কার্ড কেন নিবেন কার্ড দিয়ে কি করবেন এরকম প্রশ্ন করতে পারে ব্যাংক থেকে কোন সমস্যা নাই আপনি যে জন্য কার্ডটি আনবেন তাদের কে বুজিয়ে বলবেন কার্ডটি আপনাকে দিয়ে দিবে।
আপনার কাছ থেকে কার্ড এর চার্জ এবং ভ্যাট সহ ৫৭৫ টাক ব্যংকে পে করতে হবে।

এই প্রসেসিং হল ১ একুয়া কার্ড আর ২ লাইফ স্টাইল কার্ড এর জন্য ।
আপনি যদি নবোইয়ার কার্ড আনতে চান তাহলে আপনাকে আগে নবইয়ার আর ওফিসিয়াল সাইটে রেজিস্টেসন করে একটা সিরিয়াল নাম্বার নিয়ে ইইবিএল এর সাইট থেকে ফ্রম ডাউনলোড করে ফ্রম পুরন করে নবইয়ার এর ঠিকানায় কুরিয়ারের মাধ্যমে পাঠাতে হবে।

নবইয়ার এর ঠিকানা ফ্রম এর নিচে দেওয়া থাকবে সেই ঠিকানায় পাঠাতে হবে।
আবেদন করার ২০ থেকে ৩০ দিন এর মধ্যে আপনার পোস্ট অফিসে কার্ডটি পাঠিয়ে দিবে।
এই কার্ডটি আনতে আপনাকে কোন প্রকার চার্জ দিতে হবেনা সম্পুর্ন ফ্রিতেই পাবেন।
কার্ডটিতে ডুয়েল কারেন্সি ব্যবহার করার জন্য ইবিএল ব্যংকে গিয়ে পাসপোর্ট এনডোসমেন্ট করতে হবে।


ডলার লোড করার জন্যও ইবিএল ব্যাংক এর যে কোন একটি শাথায় গিয়ে ডলার লোড করতে হবে ।
এই ৩ টি কার্ড চাইলে কোন একজন ব্যক্তির নামে আনতে পারবেন না।
একজনের নামে সুধু একটি কার্ড ইন্টারনেশনালি ব্যবহার করতে পারবেন। চাইলে দুটি কার্ড নিতে পারেন তবে একটি কার্ড সুধু লোকালি ব্যবহার করতে পারবেন এনডোসমেন্ট করতে পারবেন না।
আর একটি কার্ড আপনি যে কোন যায়গায় ব্যবহার করতে পারবেন ।

এই কার্ড গুলি বাংলাদেশ ব্যংক কন্টোল করে তাই আপনি যদি Student ছাত্র হয়ে থাকেন খুব বড় ধরনের কোন ট্রানজেকশন করতে জাবেন না এতে করে আপনে টাকা কোথায় থেকে পেলেন তার একটা হিসাব আপনাকে বাংলাদেশ ব্যংকে দিতে হবে।
আর মনে রাখবেন আপনার কার্ড দিয়ে অন্য কারো কোন লেনদেন করে দিবেন না সুধু আপনার কাজে ব্যাবহার করবেন।

অন্য কারো লেনদেন করে দিলে আপনার কার্ডটি ব্লক হয়ে যেতে পারে ।
কার্ড এর বিষয়ে সব সময় সচেতন থাকবেন পিছনে পিন কোড সুধু আপনার জন্য কার্ড এর কোন কিছু অন্য কারো সাথে শেয়ার করবেন না ।
এই কার্ড গুলি দিয়ে আপনি সুধু ডলার লোড দিয়ে খরচ করতে পারবেন কোন কার্ড থেকে অন্য কোন কার্ডে টাকা ট্রানজেকশন করতে পারবেন না এমন কি অনলাইন থেকেও টাকা লোড করতে পারবেন না ।

টাকা লোড দেওয়ার জন্য আপনাকে ব্যংকে যেতে হবে এবং খরচ করতে পারবেন সব যায়গায়। বলতে গেলে একমুখি কার্ড বলতে পারেন ।
এর এক বছরে আপনি এনডেসমেন্ট করে খরচ করতে পারবেন ১২ হাজার ডলার ।
লিমিট সেশ হয়ে গেলে আর খরচ করতে পারবেন না।
পড়ার জন্য ধ্যনবাদ

Post a Comment

2 Comments

  1. ভাই, আমাদের দেশে upwork এর কোনো এজেন্সি আছে?
    আমি 3 মাস ধরে এখানে কাজ করছি, বেশ কিছু কাজ ও পেয়েছি কিন্তু কোনো এজেন্সির সাথে যুক্ত হতে পার্কে ভালো হতো

    ReplyDelete
    Replies
    1. আপনি কি Upwork থেকে টাকা তুলতে চাচ্ছেন

      Delete